Recents in Beach

header ads

শ্যাম্পুর ক্ষতিরক উপাদান থেকে বাঁচার সহজ ২টি উপায় | কিভাবে শ্যাম্পু ব্যবহার করবেন | শ্যাম্পু ব্যবহার করার নিয়ম

শ্যাম্পুর ক্ষতিরক উপাদান থেকে বাঁচার সহজ ২টি উপায় | কিভাবে শ্যাম্পু ব্যবহার করবেন | শ্যাম্পু ব্যবহার করার নিয়ম

black hair

আজ আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করবো শ্যাম্পুর সাহায্যে কিভাবে আপনি আপনার চুলের যত্ন নিতে পারবেন। আমাদেরকে প্রতিদিনই শ্যাম্পু ব্যবহার করতে হয়। আর এর মধ্যে রয়েছে কিছু কেমিক্যাল। কিন্তু তারপরও শ্যাম্পু ব্যবহার বন্ধ করা আমাদের পক্ষে সম্ভব নয়। কিন্তু আপনি যদি শ্যাম্পু ব্যবহারের সময় শ্যাম্পুর সাথে মাত্র দুটি উপাদান মিশিয়ে নেন তাহলে সকল সমস্যা থেকে চুলকে রক্ষা করতে পারবেন। এর পাশাপাশি চুলের গোড়া মজবুত হয়ে চুলের বৃদ্ধিতে সহায়তা করবে। কারণ চুল পাকা প্রতিরোধ হবে। তাহলে চলুন শিখে নেয়া যাক শ্যাম্পু কিভাবে ব্যবহার করতে হবে।
প্রথম টিপস

এর জন্য প্রথমে দরকার শ্যাম্পু। এবার একটি পরিষ্কার বাটিতে 2 টেবিল চামচ শ্যাম্পু নিতে হবে। আর আপনি আপনার চুলের লম্বা এবং ঘনত্ব অনুযায়ী শ্যাম্পু কম-বেশি করে নিতে পারেন। তারপর দরকার খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি উপাদান। আর তা হচ্ছে আমলকি পাউডার। আমলকির পাউডার আপনি যেকোন কসমেটিকসের দোকানে পেয়ে যাবেন। কারণ আমলকি চুলের জন্য অনেক উপকারি। এটা চুল পরা পুরোপুরি বন্ধ করে দেয়। এতে থাকা ফ্যাটি এসিড চুলের গোড়া মজবুত করে এবং চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। সেই সাথে মাথার ত্বক থেকে খুশকি দূর করে ফেলে। এখানে হাফ চামচ পরিমাণ আমলকি পাউডার ব্যবহার করবেন। তারপর অ্যাড করবেন নারকেল তেল।

এখানে চার থেকে পাঁচ ফোটা নারকেল তেল এড করে নিবেন। তবে আপনার চুল যদি খুব কম হয়ে থাকে তাহলে এখানে নারিকেল তেল এড করবেন না। এবার সব উপকরণ গুলোকে ভাল করে মিক্স করে নিন। এবার এটা ব্যবহারের পূর্বে আপনার চুলকে হালকা পানি দিয়ে ভিজিয়ে নিন। তারপর এই শ্যাম্পুটা আপনার পুরো চুলে এপ্লাই করে নিন। এপ্লাই করার পর 5 মিনিট অপেক্ষা করুন। এবং 5 মিনিট পর আপনার চুল পরিষ্কার করে নিন। আপনি যদি নিয়মিত এই ভাবে শ্যাম্পু ব্যবহার করেন তবে আপনার চুল পরা পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যাবে। তাছাড়া এখানে আমরা আমলকি ব্যবহার করেছি। এই জন্য যে এটা ব্যবহার করলে আপনাদের চুল কখনোই পাকবে না। এবং এটা আপনার চুলের বৃদ্ধিতে সহায়তা করবে।
দ্বিতীয় টিপস

এজন্য প্রথমেই দরকার শ্যাম্পু। এবার একটি পরিষ্কার বাটিতে আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী শ্যাম্পু নিয়ে নিন। তারপর এর মধ্যে দেবো আমলকির পাউডার। এখানে হাফ চামচ পরিমাণ আমলকির পাউডার এড করে নিবেন। এবারে দেবো হাফ চামচ নিম পাউডার। আয়ুর্বেদিক চিকিৎসায় নিমের পাতা, ফুল এবং ফল ব্যাপকভাবে ব্যবহার হয়ে আসছে। কারণ নিম এর মধ্যে জীবানুনাশক উপাদান রয়েছে। যা বিভিন্ন প্রকার ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করতে অনেক সাহায্য করে। তাই এটা মাথার ত্বক থেকে যেকোনো ধরনের ফাঙ্গাস এবং খুশকি দূর করে চুলের বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। এর পাশাপাশি নিমপাতা মাথার ত্বক থেকে উকুন পর্যন্ত দূর করে ফেলে। এবার এই তিনটি উপাদান ভাল করে মিক্স করে নিন। এবার জানবো এই মিশ্রণ টা কে কিভাবে ব্যবহার করতে হবে। এর জন্য আপনি আপনার পুরো চুলকে ভালো করে পানি দিয়ে ভিজিয়ে নিন।

তারপর ভেজানো মাথার ত্বক এবং চুলে এই মিশ্রণটিকে ভালো করে এপ্লাই করে নিন। এপ্লাই করার পর পাঁচ থেকে ছয় মিনিটের জন্য এই ভাবেই রেখে দিন। তারপর আপনি আপনার চুলকে পরিষ্কার করে নিন। এইভাবে ব্যবহারের ফলে শ্যাম্পু করার পর আপনার চুলের যতটা ক্ষতি হয় বা মাথার ত্বকে জ্বালাপোড়া হয় তা পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যাবে। এইভাবে ব্যবহারের ফলে আপনার চুলের রুক্ষতা দূর হয়ে যাবে। এবং মাথার ত্বকে খুশকি উৎপাদনে বাধা সৃষ্টি হবে। এতে করে আপনার চুল পরা বন্ধ হয়ে যাবে এবং চুলের বৃদ্ধিতেও সহায়তা হবে। তো ফ্রেন্ড আপনার মাথার ত্বকে যদি খুশকি এবং পাঙ্গাস থাকে তাহলে অবশ্যই এই পদ্ধতিটাকে ট্রাই করে দেখবেন। কারণ এই সমস্যাগুলি চুল পড়া এবং চুল বড় না হওয়ার কারণ।

Hopefully following the tips, you will get the solution to this problem.

Share with your friends. Help them find out about this.

I hope you understand the matter.

Thank you.

Post a Comment

0 Comments